src='https://pagead2.googlesyndication.com/pagead/js/adsbygoogle.js'/> কমদামী মোবাইলের অসুবিধা কি?

কমদামী মোবাইলের অসুবিধা কি?

কমদামী মোবাইলের অসুবিধা কি
কমদামী মোবাইলের অসুবিধা কি

অল্প কিছু টাকা সাশ্রয় করার জন্য অনেকেই কমদামী বা বাজারে তেমন সুপরিচিত নয় এমন স্মার্টফোন কমদামে কিনে থাকে। এই কমদামী ফোন আমাদের মাঝেমধ্যে অনেক বেশি ভোগান্তিতে ফেলে দেয়। আমরা সাধারণত বেশি স্পেসিফিকেশন দেখে অল্প বাজেটে ফোন কিনে থাকি। সেই অধিক স্পেসিফিকেশনের মান কেমন, সেটা কিন্তু আমরা জানিনা। বাস্তবে কোন স্মার্টফোন কোম্পানিই নিজেদের ব্যাবসায় লাভ ছাড়া ফোনের দাম নির্ধারণ করেনা। কোন একটা দিকে বেশি স্পেসিফিকেশন দিয়ে অন্য কোন দিকে কমিয়ে দেয় বা নিন্মমানের যন্ত্রাংশ ব্যাবহার করে।

বাজারে অল্পকয়েকদিন আগে নতুন এসেছে। ফোনে বাজেট অনুসারে অনেক বেশি স্পেসিফিকেশন দেয়া হয়েছে। এইরকম বেশি স্পেসিফিকেশন দেখে ফোন কিনলে পস্তাতে হবে। ফোন বেশি স্পেসিফিকেশন হয়ত ঠিকই পাবেন কিন্তু কথার বলার সময় নেটওয়ার্ক সমস্যা দেখা দিবে। সেই সমস্যা দেখা দিবে, ফোন কেনার এক দেড়বছর পর। তখন না পারবেন ফোন ব্যাবহার করতে,না পারবেন ফেলে দিতে। তখন বুঝবেন কম টাকায় বেশি স্পেসিফিকেশন কিভাবে দেয় স্মার্টফোন কোম্পানি! 

বর্তমানে মোবাইল ফোনের বাজার খুবই বেশি প্রতিযোগিতামূলক। একই ব্রান্ড তাদের সাবব্রান্ড বাজারে এনে প্রতিযোগিতাকে আরো প্রতিযোগী করেছে। ফলে কিছু নতুন স্মার্টফোন বাজারে প্রতিযোগিতার লড়াইয়ে টিকে থাকার জন্য কম বাজেটে অধিক স্পেসিফিকেশনে মোবাইল বাজারে আনছে। যারা বেশি স্পেসিফিকেশন দেখে কম বাজেটে নতুন ব্রান্ডের ফোন কিনে, তারাই এক্ষেত্রে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। কিছুকিছু ব্রান্ড আছে যারা আপনাকে র‍্যাম ও রম অনেক বেশি দিবে কিন্তু প্রসেসর দিবে নিন্মমানের। ব্যাটাছেলে দিবে পাঁচ বা ছয় হাজার এমএইচ কিন্তু চার্জার দিবে নিন্মমানের। ফলে এই বিশাল ব্যাটারি চার্জ দিতে আপনার তিন থেকে চার ঘন্টা সময় নিয়ে নিবে। তখন আপনি না পারবেন এই ফোন ব্যাবহার করতে,না পারবেন ফেলে দিতে।

এছাড়া যেসব ফোন কম বাজেটে বেশি স্পেসিফিকেশন দেয় শেগুলো কোন কোন ক্ষেত্রবিশেষে কেনার এক দুইবছর পরে এমন কোন সমস্যা দেখা দিবে যেটা না পারবেন সারাতে না পারবে ব্যাবহার করতে। তাই কম বাজেটে বেশি স্পেসিফিকেশন ফোন কিনলেও ভালো ব্রান্ড দেখে কেনার চেস্টা করবেন। বাজারে নতুন এসেছে, কম বাজেটে অনেক স্পেসিফিকেশন দিচ্ছে, এইসব ফোন এড়িয়ে যাওয়ার চেস্টা করাই শ্রেয়।

আশাকরি আমাদের আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনার যে তথ্য জানার প্রয়োজন ছিল সেটি জানতে পেরেছেন। কোন জানার বা মন্তব্য থাকলে মন্তব্য করতে পারেন। স্মার্টফোন বিষয়ক নিত্যনৈমিত্তিক অনেকে অজানা তথ্য আমাদের এই সাইটে আপনি পাবেন। নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের Facebook Page লাইক দিয়ে এক্টিভ থাকুন। সাইটের নিচের অংশে আমাদের ফেইসবুক পেইজ দেয়া আছে। সেখানে স্মার্টফোন সম্পর্কিত নিয়মিত নিত্যনতুন আরো অজানা তথ্য জানতে পারবেন।

Previous Post Next Post