src='https://pagead2.googlesyndication.com/pagead/js/adsbygoogle.js'/> Motorola Moto E7 Plus Price Review||মটোরোলা মটো ই৭ প্লাস দাম রিভিউ

Motorola Moto E7 Plus Price Review||মটোরোলা মটো ই৭ প্লাস দাম রিভিউ

Motorola Moto E7 Plus Price Details Specification Review নিয়ে বিস্তারিত খুঁটিনাটি জেনে নিন। ফোনের বিস্তারিত শেষে ভালো মন্দ উভয় দিক তুলে ধরা হবে। যার ফলে Motorola Moto E7 Plus স্মার্টফোনটি কেনার ক্ষেত্রে আপনার সিদ্ধান্ত নিতে কিছুটা সুবিধা হবে।

Motorola Moto E7 Plus Official Price: ১৪,৯৯০/-
Motorola Moto E7 Plus Unofficial Price: ১৩,৫০০/-

Moto E7 Price
Motorola Moto E7 Price

✅ Motorola Moto E7 Plus ফোনটি প্রথম বাজারে এসেছে জানুয়ারি ২০২১ সালে।
✅প্রাথমিক অবস্থায় তিনটি কালারে ফোনটি পাওয়া যাবে। সাদা,সবুজ,নীল।
✅ এই স্মার্টফোনটিতে আপনি ফোরজি সাপোর্ট পাবেন কিন্তু ফাইভজি পাবেন না।
✅ ডুয়েল ন্যানো সিম স্লট আছে। ফুল ভিও মিনিমাল নচ ডিসপ্লে। গ্লাস এর প্রোটেকশন পাবেন।
✅ ইউএসবি টাইপ সি সাপোর্ট পাবেন। যা এই ফোনের পজিটিভ দিক।
✅ Motorola Moto E7 Plus স্মার্টফোনে ওটিজি সাপোট করবে।
✅ এলসিডি টাচ স্কিন এলসিডি ডিসপ্লে।
✅ প্লাস্টিক বডি পাবেন। পাঞ্চ হোল ডিসপ্লে।
✅ গরিলা গ্লাসের প্রোটেকশন থাকবে। পেছনে প্লাস্টিক বডি পাচ্ছেন। এককথায় আপনার কেনা এই স্মার্টফোনটি দেখতে অসাধারণ হবে।

★ Motorola Moto E7 Plus ফোনের ওজন ও সাইজঃ
✅ স্মার্টফোনটির ওজন ১৮২ গ্রাম। যা মোটামুটি ওজন।
✅ স্মার্টফোনটির সাইজ ৬.৫ ইঞ্চি। মোটামুটি বড়। মাল্টিটাস্ক করতে পারবেন।

Motorola Moto E7 Plus ফোনের ক্যামেরাঃ
✅ সামনের ক্যামেরা ৫ ম্যাগাপিক্সেল, এইচডিআর সাপোর্ট করবে। ১০৮০ পি তে ভিডিও করা যাবে। ফুল এইচডি ভিডিও করা যাবে।
✅ পেছনের ক্যামেরা ৪৮+২ মেগাপিক্সেল।
তারমানে মাত্র দুটি ক্যামেরা থাকছে পেছনে। ডেপথ সেন্সর থাকবে।
✅ Motorola Moto E7 Plus ফোনটি দিয়ে ১০৮০পি তে ভিডিও রেকর্ডি করা যাবে। যা এই ফোনের জন্য খুবই ভালো দিক।

Motorola Moto E7 Plus ফোনের ব্যাটারি ও চার্জারঃ
✅ ৫০০০ এম্পিয়ার নন রিমুভেবল ব্যাটারি পাবেন। নরমাল ব্যাবহারে ২-৩দিন বেকাপ পাবেন।
✅ ১০ ওয়াটের ফাস্ট চার্জার পাবেন। যা এই স্মার্টফোনটির ভালো দিক।

Motorola Moto E7 Plus ফোনের এন্ডয়েড ভার্সন ও প্রসেসরঃ
✅ এন্ড্রয়েট ভার্সন ১০.০০ পাচ্ছেন।
✅ Motorola Moto E7 Plus ফোনটিতে পাবেন স্নাপ্পড্রাগন ৪৬০ প্রসেসর। যার স্পিড এককথায় দূর্দান্ত!!

Motorola Moto E7 Plus ফোনের র‍্যাম&রম ও মেমোরিঃ
✅ র‍্যাম ৪ জিবি।
✅ রম ৬৪ জিবি পাশাপাশি ২৫৬ জিবি মাইক্রো এসডি কার্ড বা ডেডিকেটেড স্লট থাকবে।

অন্যান্য সুবিধা যা যা পাবেন। ভালো ও মন্দ তার মধ্যে আছে বিস্তারিত আলোচনা করা হচ্ছেঃ
✅ Motorola Moto E7 Plus স্মার্টফোনটিতে ফোনের ডিসপ্লেতে ফিঙ্গারপ্রিন্ট থাকবেনা,ফিঙ্গারপ্রিন্ট ফোনের পেছনের অংশে থাকবে। পাশাপাশি ফোনটিতে ফেইস আনলক তো আছেই। তাছাড়া ফোনটি ফুল এইচডি আইপিএস এলসিডি স্কিন। এই স্মার্টফোনটি ফুল ভিও ওয়াটারড্রপ নচ স্টাইলের ডিসপ্লে। গোরিলা গ্লাসের প্রোটেকশন পাচ্ছেন। ১০৮০ পি তে ভিডিও সহ আরো অনেই সুবিধা পাবেন। যারা গেম খেলতে ভালোবাসেন তাদের জন্য দূর্দান্ত মানের একটি ফোন। Motorola Moto E7 Plus এই স্মার্টফোনে ৫০০০ এম্পিয়ার ব্যাটারির সাথে দূর্দান্ত এক প্রসেসর!! ১০ ওয়াটের ফাস্ট চার্জার তো আছেই। তার মানে আপনাকে চার্জ নিয়ে ভাবতেই হবেনা। গেমিং এর জন্য দূর্দান্ত একটি ফোন। ব্যাটারি অনেক ভালো পাশাপাশি ক্যামেরা মোটামুটি বলার মতো ভালো পাবেন। আপনার বাজেটের মধ্যে এই দামে Motorola Moto E7 Plus এর চেয়ে ভালো ফোন আর নাও পেতে পারেন। প্রসেসর মোটামুটি এই বাজেটে চলার মতো। ফাস্ট চার্জার আছে যা নিয়ে অভিযোগ করার সুযোগ নেই বললেই চলে। নয়েস কনসোলেশন থাকবে। তারমানে আপনার সামনে কোলাহল বা হৈচৈ থাকলেও অপরপ্রান্তে শুনতে সমস্যা হবেনা। এই বাজেটে Motorola Moto E7 Plus চেয়ে ভালো ফোন পাবেন না। তাই চাইলে কিনে ফেলতে পারেন। ফোনটি আপনার বাজেটের মধ্যে দূর্দান্ত একটি ফোন হবে। ব্যাটারি বেকাপ নিয়ে কোন চিন্তাই করতে হবেনা। বর্তমান বাজারের ফোনগুলা আগের ফোনের তুলনার ব্যাটারি সেকশনে অনেক আপগ্রেডেশন করা হয়েছে। তাই আপনি অনায়াসে ২-৩দিন চালাতে পারবেন যদিনা আপনি কোনপ্রকার গেইম না খেলেন। আর গেমিং করলেও ১-২দিন চালানো যাবে। সেটা কোন গেইম খেলছেন সেটার উপর নির্ভর করবে।

ফোনের সিম নেটওয়ার্ক সাপোর্ট,ওয়াইফাই স্পিড,ভয়েজ কল এককথায় অসাধারণ। এই নিয়ে কোন অভিযোগ করার উপায় নেই। ব্লুটুথ,ওয়াইফাই স্পিড,ইন্টারনেট স্পিড যথেষ্ট ভালো,কারন বর্তমানে এই ফোনে সকল প্রকার  অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যাবহার করা হয়েছে। Motorola Moto E7 Plus স্মার্টফোনটি হ্যাং হওয়া বা ফোন স্লো হওয়ার সম্ভাবনা নেই। নিয়মিত ব্যাবহারে ফোনটিতে হিটিং ইস্যু থাকার সম্ভাবনা কম। দীর্ঘক্ষন পাবজি বা ফ্রি ফায়ার গেইমস খেললেও তেমন একটা হিটিং হওয়ার সম্ভাবনা নেই। কারন এই ফোনটিতে রয়েছে বর্তমান বাজারের আপগ্রেডেশন প্রসেসর।

আশাকরি আমাদের আজকের এই আর্টিকেল থেকে Motorola Moto E7 Plus মোবাইল সম্পর্কে যে তথ্য জানার প্রয়োজন ছিল সেগুলা জানতে পেরেছেন। নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিয়ে এক্টিভ থাকুন। এই সাইটের নিচের অংশে আমাদের ফেইসবুক পেইজ দেয়া আছে। সেখানে স্মার্টফোন সম্পর্কিত নিত্যনৈমিত্তিক আরো অনেক অজানা তথ্য জানতে পারবেন।

এটিই একমাত্র বাংলা মোবাইল রিভিউ ওয়েবসাইট। যেখানে বাংলায় মোবাইল ফোনের বিস্তারিত রিভিউ করা হয়। পাশাপাশি প্রতিটি রিভিউ শেষে আমাদের নিজস্ব কিছু মতামত থাকে। যেই মতামতের উপর ভিত্তি করে আপনাদের সিদ্ধান্ত নিতে সুবিধা হয়। আপনাদের সকলের সাপোর্ট,আমাদের জন্য অনুপ্রেরণার উৎস।
মোবাইল বিষয়ক উপরের সকল তথ্যের শতভাগ গ্যারান্টি বা নিশ্চয়তা দিচ্ছিনা কারন সকল তথ্য কোন কোন ওয়েবসাইট মাধ্যম বা সোর্স থেকে সংগ্রহীত হয়ে থাকে। তবে যখন কোন স্মার্টফোন ব্রান্ড বা প্রতিষ্ঠান আমাদেরকে রিভিউ ইউনিট দিয়ে থাকে, তখন সেইসকল রিভিউ শতভাগ নিশ্চয়তা দিতে পারি।

Previous Post Next Post